বাজেট কিভাবে প্রণয়ন করা হয় । বাজেট তৈরির নিয়ম practical

750.00৳ 

সরাসরি কিনতে ফোন করুন: 01622913639</span>

♣ ঢাকার বাহিরে থেকে অর্ডার করতে চাইলে ১৫০ টাকা অগ্রিম ডেলিভারি পরিশোধ করুন ।

ব্যবহারের সুবিধা;
১, আপনার লিঙ্গ মোটা এবং বড় করবে।
৩, পূর্বের তুলনায় সময় বাড়াবে এবং সময় দীর্ঘায়িত করবে।
৪, আগের থেকে বেশি সময় স্ত্রী সহবাস করতে পারবেন।<br />৫, স্ত্রীকে দ্রুত আনন্দ দেওয়া যায় এবং স্ত্রীর অর্গাজম করা সম্ভব।
৬, মেয়েরা পরিপূর্ণ যৌন তৃপ্তি লাভ  লাভ করবে।

743 in stock

Description

বাজেট কিভাবে প্রণয়ন করা হয় । বাজেট প্রণয়ন একটি জটিল প্রক্রিয়া যা বিভিন্ন ধাপে সম্পন্ন হয়। ব্যক্তিগত, পারিবারিক, প্রতিষ্ঠানগত, সরকারি – যেকোনো স্তরে বাজেট তৈরির মূল নীতিগুলো একই রকম, তবে প্রক্রিয়াটি স্তরভেদে কিছুটা ভিন্ন হতে পারে।

আরো পড়ুনঃম্যাজিক কনডম কিনতে এখনই ক্লিক করুন

বাজেট কিভাবে প্রণয়ন করা হয়

ব্যক্তিগত বা পারিবারিক বাজেট প্রণয়ন:

১. আয় ও ব্যয়ের হিসাব:

প্রথমে আপনার সকল আয়ের উৎস (বেতন, ব্যবসা, বিনিয়োগ ইত্যাদি) এবং নিয়মিত ব্যয় (খাবার, বাসস্থান, পরিবহন, শিক্ষা, চিকিৎসা ইত্যাদি) লিপিবদ্ধ করুন।

২. লক্ষ্য নির্ধারণ:

আপনার আর্থিক লক্ষ্য নির্ধারণ করুন, যেমন ঋণ পরিশোধ, সঞ্চয় বৃদ্ধি, ভ্রমণ, অবসর পরিকল্পনা ইত্যাদি।

৩. বাজেট তৈরি:

আপনার আয়ের চেয়ে কম খরচ করার জন্য একটি বাজেট তৈরি করুন। প্রতিটি খাতের জন্য একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ বরাদ্দ করুন।

৪. বাজেট পর্যবেক্ষণ ও পরিবর্তন:

নিয়মিত আপনার বাজেট পর্যবেক্ষণ করুন এবং প্রয়োজনে পরিবর্তন করুন।

প্রতিষ্ঠানগত বাজেট প্রণয়ন:

১. লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নির্ধারণ:

প্রতিষ্ঠানের সার্বিক লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নির্ধারণ করুন।

২. বিভাগীয় পরিকল্পনা:

প্রতিটি বিভাগের জন্য তাদের লক্ষ্য, কর্মসূচি এবং আর্থিক চাহিদা সম্পর্কিত পরিকল্পনা তৈরি করুন।

৩. বাজেট প্রণয়ন:

বিভাগীয় পরিকল্পনার ভিত্তিতে একটি সার্বিক বাজেট তৈরি করুন।

৪. বাজেট পর্যালোচনা ও অনুমোদন:

বাজেট পর্যালোচনা করুন এবং প্রয়োজনে পরিবর্তন করুন।

৫. বাজেট বাস্তবায়ন ও পর্যবেক্ষণ:

বাজেট বাস্তবায়ন করুন এবং নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করুন।

সরকারি বাজেট প্রণয়ন:

১. অর্থনৈতিক পর্যালোচনা:

দেশের বর্তমান অর্থনৈতিক অবস্থা পর্যালোচনা করুন।

২. নীতি নির্ধারণ:

সরকারের আর্থিক নীতি নির্ধারণ করুন।

৩. বাজেট প্রণয়ন:

বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের জন্য বরাদ্দ নির্ধারণ করে সার্বিক বাজেট তৈরি করুন।

৪. বাজেট উপস্থাপন ও অনুমোদন:

জাতীয় সংসদে বাজেট উপস্থাপন করুন এবং অনুমোদন লাভ করুন।

৫. বাজেট বাস্তবায়ন ও পর্যবেক্ষণ:

বাজেট বাস্তবায়ন করুন এবং নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করুন।

বাজেট প্রণয়নের ক্ষেত্রে কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়:

  • বাস্তবসম্মত আয়ের পূর্বাভাস
  • সঠিক খরচের হিসাব
  • স্পষ্ট লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

পড়ুনঃ লুব্রিকেন্ট জেল কিনতে এখনই ক্লিক করুন

বাজেট তৈরির নিয়ম practical

ব্যক্তিগত বাজেট তৈরি:

প্রথম ধাপ: আয়ের হিসাব:

  • মাসিক আয়:

    • বেতন: নিয়োগকর্তার কাছ থেকে প্রাপ্ত মাসিক বেতন।
    • ব্যবসা থেকে আয়: ব্যবসা থেকে প্রাপ্ত মাসিক আয়।
    • ভাড়া: বাসা/দোকান ভাড়া থেকে প্রাপ্ত মাসিক আয়।
    • অন্যান্য আয়ের উৎস: ফ্রিল্যান্সিং, টিউশনি, ইত্যাদি থেকে প্রাপ্ত মাসিক আয়।
  • বছরের আয়:

    • বোনাস: বছরের শেষে প্রাপ্ত বোনাস।
    • ওভারটাইম: অতিরিক্ত কাজের জন্য প্রাপ্ত অতিরিক্ত বেতন।
    • ছুটির বেতন: ছুটির সময় প্রাপ্ত বেতন।
  • অপ্রত্যাশিত আয়:

    • উপহার: বন্ধুবান্ধব, পরিবার থেকে প্রাপ্ত উপহার।
    • লটারি: লটারিতে জয়ী হলে প্রাপ্ত অর্থ।
    • বীমা দাবি: বীমা দাবি থেকে প্রাপ্ত অর্থ।

দ্বিতীয় ধাপ: ব্যয়ের হিসাব:

  • স্থির খরচ: বাড়িভাড়া, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, ইন্টারনেট, টিভি সাবস্ক্রিপশন, ইত্যাদি স্থির খরচের তালিকা তৈরি করুন।
  • পরিবর্তনশীল খরচ: খাবার, পরিবহন, যোগাযোগ, বিনোদন, কেনাকাটা, ইত্যাদি পরিবর্তনশীল খরচের তালিকা তৈরি করুন।
  • অন্যান্য খরচ: ঋণ পরিশোধ, ভ্রমণ, বিশেষ অনুষ্ঠান, ইত্যাদি অন্যান্য খরচের তালিকা তৈরি করুন।

তৃতীয় ধাপ: বাজেট তৈরি:

  • আয়ের চেয়ে কম খরচ: আপনার আয়ের চেয়ে কম খরচের পরিকল্পনা করুন।
  • প্রয়োজনীয়তা vs ইচ্ছা: প্রয়োজনীয় খরচ এবং ইচ্ছার খরচের মধ্যে পার্থক্য করুন।
  • খরচ কমানো: অপ্রয়োজনীয় খরচ কমানোর চেষ্টা করুন।
  • সঞ্চয়: আয়ের একটি অংশ (10-20%) সঞ্চয়ের জন্য বরাদ্দ রাখুন।
  • ঋণ পরিশোধ: ঋণ থাকলে দ্রুত পরিশোধের চেষ্টা করুন।

চতুর্থ ধাপ: বাজেট পর্যবেক্ষণ ও পরিমার্জন:

  • নিয়মিত খরচ ট্র্যাকিং: নিয়মিত খরচ ট্র্যাক করুন এবং বাজেটের সাথে মিলিয়ে দেখুন।
  • বাজেট পরিমার্জন: প্রয়োজনে বাজেট পরিমার্জন করুন।
  • নিয়মিত পর্যালোচনা: নিয়মিত বাজেট পর্যালোচনা করুন এবং আপডেট করুন।

বাজেট তৈরির সহায়ক সরঞ্জাম:

  • বাজেট ট্র্যাকিং অ্যাপ: বিভিন্ন বাজেট ট্র্যাকিং অ্যাপ ব্যবহার করে খরচ ট্র্যাক করতে পারেন।
  • স্প্রেডশীট: স্প্রেডশীট ব্যবহার করে বাজেট তৈরি ও ট্র্যাক করতে পারেন।
  • বাজেট পরামর্শদাতা: প্রয়োজনে একজন বাজেট পরামর্শদাতার সাহায্য নিতে পারেন।

বাজেট তৈরির সুবিধা:

  • আর্থিক নিয়ন্ত্রণ: আর্থিক নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।
  • ঋণ পরিশোধে সহায়তা: ঋণ দ্রুত পরিশোধে সাহায্য করে।
  • ভবিষ্যতের জন্য প্রস্তুতি: ভবিষ্যতের আর্থিক প্রস্তুতি নিতে সাহায্য করে।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “বাজেট কিভাবে প্রণয়ন করা হয় । বাজেট তৈরির নিয়ম practical”

Your email address will not be published. Required fields are marked *