বাসর রাতে কি করলে বাচ্চা হয়

750.00৳ 

সরাসরি কিনতে ফোন করুন: 01622913639

♣ ঢাকার বাহিরে থেকে অর্ডার করতে চাইলে ১৫০ টাকা অগ্রিম ডেলিভারি পরিশোধ করুন ।

ব্যবহারের সুবিধা;
১, আপনার লিঙ্গ মোটা এবং বড় করবে।
৩, পূর্বের তুলনায় সময় বাড়াবে এবং সময় দীর্ঘায়িত করবে।
৪, আগের থেকে বেশি সময় স্ত্রী সহবাস করতে পারবেন।
৫, স্ত্রীকে দ্রুত আনন্দ দেওয়া যায় এবং স্ত্রীর অর্গাজম করা সম্ভব।
৬, মেয়েরা পরিপূর্ণ যৌন তৃপ্তি লাভ  লাভ করবে।

742 in stock

SKU: (3) ২০ থেকে ৩০ মিনিট সেক্স করার ভিগা স্প্রে Category: Tag:

Description

বাসর রাতে কি করলে বাচ্চা হয় । বাসর রাতে বাচ্চা হওয়ার জন্য নির্দিষ্ট কোন কাজ নেই। গর্ভধারণের জন্য প্রয়োজনীয় দুটি বিষয় হলো:

বাসর রাতে কি করলে বাচ্চা হয়

• ডিম্বাণু: মেয়েদের ডিম্বাশয় থেকে প্রতি মাসে একটি ডিম্বাণু নির্গত হয়। ডিম্বাণু নির্গত হওয়ার পর ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত গর্ভধারণের জন্য সক্ষম থাকে । আরো পড়ুনঃ ২ পিস চামড়ার বেল্ট ৬০০ টাকা কিনতে এখনই ক্লিককরুন

•শুক্রাণু: ছেলেদের শুক্রাণু গর্ভাশয়ে প্রবেশ করে ডিম্বাণুর সাথে মিলিত হলে গর্ভধারণ হয়। শুক্রাণু মেয়েদের গর্ভাশয়ে ৫-৭ দিন পর্যন্ত জীবিত থাকতে পারে।

গর্ভধারণের সম্ভাবনা বৃদ্ধির জন্য বাসর রাতে নিম্নলিখিত বিষয়গুলো মেনে চলতে পারেন:

•সঠিক সময়: মেয়েদের মাসিক চক্রের ১৪তম দিনটি ডিম্বস্ফোটন হওয়ার সম্ভাব্য দিন। ডিম্বস্ফোটনের আগের 2-3 দিন এবং ডিম্বস্ফোটনের পরের দিন পর্যন্ত যৌন মিলনের মাধ্যমে গর্ভধারণের সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়।

•সঠিক অবস্থান: যৌন মিলনের সময় সঠিক অবস্থান গর্ভধারণের সম্ভাবনা বৃদ্ধি করতে পারে। মিশনারি পজিশন (Missionary position) গর্ভধারণের জন্য সবচেয়ে কার্যকরী অবস্থান বলে মনে করা হয়।

•পর্যাপ্ত সময়: যৌন মিলনের সময় পর্যাপ্ত সময় নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ। দ্রুত শেষ করে ফেললে শুক্রাণু গর্ভাশয়ে পৌঁছাতে সময় নাও পেতে পারে।

•পূর্ব প্রস্তুতি: যৌন মিলনের আগে মেয়েদের যোনী পরিষ্কার এবং শুকনো রাখা উচিত। লুব্রিকেন্ট ব্যবহার করা গর্ভধারণের সম্ভাবনা বৃদ্ধি করতে পারে।

•স্বাস্থ্যকর জীবনধারা: স্বাস্থ্যকর জীবনধারা গর্ভধারণের সম্ভাবনা বৃদ্ধি করে। নিয়মিত ব্যায়াম, স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া এবং পর্যাপ্ত ঘুম গর্ভধারণের জন্য অনুকূল পরিবেশ তৈরি করে।

•ধূমপান ও মদ্যপান ত্যাগ: ধূমপান ও মদ্যপান গর্ভধারণের সম্ভাবনা কমিয়ে দেয়। তাই বাসর রাতের আগে থেকেই ধূমপান ও মদ্যপান ত্যাগ করা উচিত।

•মানসিক চাপ কমানো: মানসিক চাপ গর্ভধারণের জন্য বাধা হতে পারে। তাই বাসর রাতে মানসিক চাপ কমিয়ে রাখা গুরুত্বপূর্ণ।

আরো পড়ুনঃ আ দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম/ আ দিয়ে মেয়েদের  ইসলামিক নাম

মনে রাখবেন:

  • গর্ভধারণের জন্য নির্দিষ্ট কোন দিন বা সময় নেই।
  • গর্ভধারণের জন্য ধৈর্য ধরা জরুরি।
  • গর্ভধারণে কোন সমস্যা হলে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

বাসর রাতে গর্ভধারণের সম্ভাবনা বাড়ানোর জন্য, নিচের বিষয়গুলো অনুসরণ করা যেতে পারে:

উর্বর সময়:

  • মহিলার মাসিক চক্রের ১৪তম দিনের आसपास গর্ভধারণের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি থাকে। এই সময়কে “উর্বর সময়” বলা হয়।
  • উর্বর সময় নির্ধারণের জন্য বিভিন্ন পদ্ধতি ব্যবহার করা যেতে পারে, যেমন ওভুলেশন টেস্ট কিট, বেসাল বডি টেম্পারেচার ট্র্যাকিং, ইত্যাদি।

যৌনমিলন:

  • উর্বর সময়ের दौरान, নিয়মিত যৌনমিলন গর্ভধারণের সম্ভাবনা বাড়িয়ে তোলে।
  • গভীরভাবে যৌনমিলন করলে শুক্রাণু ডিম্বাণুর কাছে পৌঁছাতে সহায়তা করে।
  • যৌনমিলনের পর কিছুক্ষণ শুয়ে থাকলে শুক্রাণু গর্ভাশয়ে পৌঁছাতে সহায়তা করে।

অন্যান্য বিষয়:

  • স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া এবং নিয়মিত ব্যায়াম করা উভয় সঙ্গীর জন্যই গর্ভধারণের সম্ভাবনা বাড়িয়ে তোলে।
  • ধূমপান, অ্যালকোহল, এবং ক্যাফেইন গ্রহণ সীমিত করা উচিত।
  • মানসিক চাপ কমিয়ে রাখা গুরুত্বপূর্ণ।

কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়:

  • গর্ভধারণের জন্য শুধুমাত্র বাসর রাতে যৌনমিলন করলেই হবে না, উর্বর সময়ের दौरान নিয়মিত যৌনমিলন করা জরুরি।
  • গর্ভধারণের জন্য কোন নির্দিষ্ট “পজিশন” নেই।
  • যদি এক বছরের চেষ্টার পরও গর্ভধারণ না হয়, তাহলে একজন ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা উচিত।

মনে রাখবেন:

  • গর্ভধারণ একটি জৈবিক প্রক্রিয়া এবং এটি নিশ্চিত করা যায় না।
  • উপরের বিষয়গুলো অনুসরণ করলে গর্ভধারণের সম্ভাবনা বাড়ানো যেতে পারে।

কিছু ভুল ধারণা:

  • বাসর রাতে প্রথমবার যৌনমিলন করলেই গর্ভধারণ হয়।
  • নির্দিষ্ট কিছু খাবার গর্ভধারণের সম্ভাবনা বাড়িয়ে তোলে।
  • গর্ভধারণের জন্য পূর্ণিমা বা অমাবস্যার রাতে যৌনমিলন করতে হবে।

এই ধারণাগুলো ভুল এবং এর কোন বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “বাসর রাতে কি করলে বাচ্চা হয়”

Your email address will not be published. Required fields are marked *