ইসলামে মাসিকের কতদিন পর সহবাস করা যায়

300.00৳ 

সরাসরি কিনতে ফোন করুন: 01622913639

♣ ঢাকার বাহিরে থেকে অর্ডার করতে চাইলে ১৫০ টাকা অগ্রিম ডেলিভারি পরিশোধ করুন ।

ব্যবহারের সুবিধা;
১, আপনার লিঙ্গ মোটা এবং বড় করবে।
৩, পূর্বের তুলনায় সময় বাড়াবে এবং সময় দীর্ঘায়িত করবে।
৪, আগের থেকে বেশি সময় স্ত্রী সহবাস করতে পারবেন।
৫, স্ত্রীকে দ্রুত আনন্দ দেওয়া যায় এবং স্ত্রীর অর্গাজম করা সম্ভব।
৬, মেয়েরা পরিপূর্ণ যৌন তৃপ্তি লাভ  লাভ করবে।

742 in stock

SKU: (4)15-20 মিনিট সহবাস করার হাব্বে নিশাদ Category: Tag:

Description

ইসলামে মাসিকের কতদিন পর সহবাস করা যায় বিস্তারিত আলোচনা

হায়েজের সময় সহবাস নিষিদ্ধ

ইসলামে হায়েজের সময় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সহবাস সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। পবিত্র কুরআনে আল্লাহ তা’আলা বলেন, “তোমরা মাসিকের সময় নারীদের কাছে যেতে পারো না; বরং তারা পবিত্র না হওয়া পর্যন্ত তাদের থেকে দূরে থাকো। যখন তারা পবিত্র হয়ে যায়, তখন তোমরা তাদের কাছে যেতে পারো যেখানে আল্লাহ তোমাদের জন্য নির্ধারণ করে দিয়েছেন।” (সূরা বাকারাহ: 222)

ইসলামে মাসিকের কতদিন পর সহবাস করা যায়

পাক হওয়ার পর সহবাস

হায়েজের রক্তপাত সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে গেলে, যোনিপথ পরিষ্কার ও শুষ্ক হলে পবিত্র স্নান করতে হবে। পবিত্র স্নান করার পর থেকে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সহবাস করা جائز।

কতদিন পর পবিত্র স্নান করা যাবে

  • সাধারণত ৭ দিন: বেশিরভাগ নারীর হায়েজ ৫ থেকে ৭ দিন স্থায়ী হয়। তাই, সাধারণত হায়েজ শুরু হওয়ার ৭ দিন পর পবিত্র স্নান করা যায়।
  • ১৫ দিনের বেশি হলে: কোন নারীর যদি হায়েজ ১৫ দিনের বেশি স্থায়ী হয়, তাহলে ১৫ দিন পূর্ণ হওয়ার পর পবিত্র স্নান করা যাবে।

কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়

  • হায়েজের সময় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে স্পর্শ, চুম্বন, আলিঙ্গন করাও নিষিদ্ধ।
  • হায়েজের সময় স্ত্রীর জন্য রোজা রাখা ও নামাজ পড়া নিষিদ্ধ।
  • হায়েজ শেষ হওয়ার পর পবিত্র স্নান করার আগে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সহবাস করা جائز নয়।

উদাহরণ:

  • যদি কোন নারীর হায়েজ শনিবার শুরু হয়, তাহলে সাধারণত সে ৭ দিন পর, অর্থাৎ শুক্রবার পবিত্র স্নান করতে পারবে।
  • তবে, যদি তার হায়েজ ১৫ দিনের বেশি স্থায়ী হয়, তাহলে সে ১৫ দিন পূর্ণ হওয়ার পর, অর্থাৎ ১৬তম দিনে পবিত্র স্নান করতে পারবে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য

উপরে উল্লেখিত বিষয়গুলো সাধারণ নিয়ম। কোন নারীর যদি হায়েজ সম্পর্কিত কোন সমস্যা থাকে, যেমন:

  • অতিরিক্ত রক্তপাত
  • দীর্ঘস্থায়ী হায়েজ
  • অনিয়মিত হায়েজ
  • যোনিপথে দুর্গন্ধ
  • তীব্র ব্যথা

তাহলে একজন আলেম বা ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা উচিত।

ইসলামে মাসিকের কতদিন পর সহবাস করতে হয়

ইসলামে মাসিকের কতদিন পর সহবাস করতে হবে তা নির্ভর করে মাসিকের ধরণ এবং মহিলার ব্যক্তিগত পরিস্থিতির উপর।

সাধারণ নিয়ম অনুসারে:

  • পাক হওয়ার পর সহবাস করা

মাসিক শেষ হয়ে পুরোপুরি পাক হওয়ার পর সহবাস করা জায়েজ। পাক হওয়ার লক্ষণ হলো –

*যোনিপথ থেকে সাদা পানি বের হওয়া

*যোনিপথ শুষ্ক ও পরিষ্কার বোধ করা

*কোনো রক্ত বা দাগ না থাকা

  • ন্যূনতম ১৫ দিন অপেক্ষা করা

কিছু আলেম মনে করেন যে, মাসিক শেষ হওয়ার পর ন্যূনতম ১৫ দিন অপেক্ষা করা উচিত। কারণ, গর্ভধারণের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি থাকে এই সময়কালে।

  • সর্বোচ্চ ৩০ দিন অপেক্ষা করা

আবার কিছু আলেম মনে করেন যে, সর্বোচ্চ ৩০ দিন অপেক্ষা করা উচিত। এর বেশি সময় অপেক্ষা করা মাকরুহ।

বিশেষ পরিস্থিতি:

  • দীর্ঘ মাসিক: যদি মাসিক ৭ দিনের বেশি স্থায়ী হয়, তাহলে ৭ দিন পর পাক হওয়ার অপেক্ষা না করে সহবাস করা যাবে।
  • অল্প মাসিক: যদি মাসিক ৩ দিনের কম স্থায়ী হয়, তাহলে ৩ দিন অপেক্ষা করে সহবাস করা যাবে।
  • গর্ভধারণের ইচ্ছা: যদি গর্ভধারণের ইচ্ছা থাকে, তাহলে মাসিক শেষ হওয়ার পর ১০ থেকে ১৪ দিনের মধ্যে সহবাস করা উচিত। কারণ, এই সময়কালে গর্ভধারণের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি থাকে।

সহবাসের পূর্বে স্ত্রীর সাথে আলোচনা করা

সহবাস করার পূর্বে স্ত্রীর সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। স্ত্রী যদি সহবাসের জন্য প্রস্তুত না থাকে, তাহলে তাকে জোর করা উচিত নয়।

ধর্মীয় দিক:

ইসলামে মাসিকের সময় সহবাস করা নিষিদ্ধ। মাসিক শেষ হওয়ার পর পাক হওয়ার অপেক্ষা না করে সহবাস করাও নিষিদ্ধ।

স্বাস্থ্যগত দিক:

মাসিকের সময় সহবাস করলে বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দিতে পারে। যেমন

*যোনিপথে সংক্রমণ

*জরায়ুতে সংক্রমণ

*প্রদাহ

*গর্ভপাত

উপসংহার:

ইসলামে মাসিকের কতদিন পর সহবাস করতে হবে তা নির্ভর করে মাসিকের ধরণ, মহিলার ব্যক্তিগত পরিস্থিতি এবং স্ত্রীর ইচ্ছার উপর।

আরও তথ্যের জন্য:

  • একজন আলেমের সাথে পরামর্শ করা
  • ইসলামী বই ও ওয়েবসাইট থেকে জানা

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “ইসলামে মাসিকের কতদিন পর সহবাস করা যায়”

Your email address will not be published. Required fields are marked *