যোনি ফর্সা করার ক্রিমের নাম । মেয়েদের যোনি ফর্সা করার ক্রিমের নাম

850.00৳ 

সরাসরি কিনতে ফোন করুন: 01622913639

♣ ঢাকার বাহিরে থেকে অর্ডার করতে চাইলে ১৫০ টাকা অগ্রিম ডেলিভারি পরিশোধ করুন ।

ব্যবহারের সুবিধা;
১, আপনার লিঙ্গ মোটা এবং বড় করবে।
৩, পূর্বের তুলনায় সময় বাড়াবে এবং সময় দীর্ঘায়িত করবে।
৪, আগের থেকে বেশি সময় স্ত্রী সহবাস করতে পারবেন।
৫, স্ত্রীকে দ্রুত আনন্দ দেওয়া যায় এবং স্ত্রীর অর্গাজম করা সম্ভব।
৬, মেয়েরা পরিপূর্ণ যৌন তৃপ্তি লাভ  লাভ করবে।

745 in stock

Description

যোনি ফর্সা করার ক্রিমের নাম । যোনির ত্বকের রঙ হালকা করার জন্য কোনও ক্রিমের অনুমোদন নেই। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে খাদ্য ও ঔষধ প্রশাসন (এফডিএ) যোনির ত্বকের রঙ হালকা করার দাবি করা কোনও পণ্যের অনুমোদন দেয়নি।

যোনি ফর্সা করার ক্রিমের নাম

যোনির ত্বক হালকা করার জন্য ব্যবহৃত কিছু ক্রিমের মধ্যে রয়েছে:

  • হাইড্রোকুইনোন: হাইড্রোকুইনোন একটি প্রেসক্রিপশন ওষুধ যা ত্বকের মেলানিনের উৎপাদন কমাতে ব্যবহৃত হয়। এটি গর্ভবতী বা স্তন্যদানকারী মহিলাদের জন্য সুপারিশ করা হয় না।

    আরো পড়ুনঃ মেয়েদের যোনি টাইট করার ক্রিম কিনতে এখনই ক্লিক করুন

  • কোজিক অ্যাসিড: কোজিক অ্যাসিড হল একটি ওভার-দ্য-কাউন্টার ত্বক হালকা করার এজেন্ট যা মেলানিন উৎপাদনও কমাতে পারে। এটি গর্ভবতী বা স্তন্যদানকারী মহিলাদের জন্য সুপারিশ করা হয় না।
  • আজেলাইক অ্যাসিড: আজেলাইক অ্যাসিড হল প্রেসক্রিপশন বা ওভার-দ্য-কাউন্টারে পাওয়া যায় এমন একটি ওষুধ যা মেলানিনের উৎপাদন কমাতে এবং ব্রণের চিকিৎসা করতে ব্যবহৃত হয়। এটি গর্ভবতী বা স্তন্যদানকারী মহিলাদের জন্য সুপারিশ করা হয় না।
  • গ্লাইকোলিক অ্যাসিড: গ্লাইকোলিক অ্যাসিড হল একটি আলফা হাইড্রক্সি অ্যাসিড (এএইচএ) যা ত্বককে এক্সফোলিয়েট করতে ব্যবহৃত হয় এবং মেলানিন উৎপাদন কমাতে পারে। এটি গর্ভবতী বা স্তন্যদানকারী মহিলাদের জন্য সুপারিশ করা হয় না।

এটি লক্ষ করা গুরুত্বপূর্ণ যে এই ক্রিমগুলির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে, যার মধ্যে রয়েছে:

  • ত্বকের জ্বালা
  • লালভাব
  • শুষ্কতা
  • চুলকানি
  • সূর্যের প্রতি সংবেদনশীলতা বৃদ্ধি

আপনি যদি আপনার যোনির ত্বকের রঙ হালকা করার কথা ভাবছেন তবে আপনার একজন ডাক্তারের সাথে কথা বলা গুরুত্বপূর্ণ। ঝুঁকি এবং সুবিধাগুলি নিয়ে আলোচনা করতে এবং আপনার জন্য সঠিক কিনা তা নির্ধারণ করতে তারা আপনাকে সাহায্য করতে পারে।

মেয়েদের যোনি ফর্সা করার ক্রিমের নাম

যোনি ফর্সা করার ক্রিম:

কয়েকটি জনপ্রিয় ক্রিমের নাম:

  • ফেমিনেল ক্লিয়ার: এটি একটি অ্যান্টি-ফাঙ্গাল ক্রিম যা যোনির চুলকানি, জ্বালা এবং কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে।
  • ইনোভারা: এটি একটি ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম যা যোনির ত্বককে নরম এবং উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে।
  • ফেমিলাক্ট: এটি ল্যাকটিক অ্যাসিডযুক্ত একটি ক্রিম যা যোনির pH ভারসাম্য বজায় রাখতে এবং কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে।
  • নাইট্রোজেনা: এটি একটি হাইড্রোকোর্টিসোন ক্রিম যা যোনির জ্বালা এবং লালভাব কমাতে সাহায্য করে।
  • ক্লিয়ারজেল: এটি একটি অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল ক্রিম যা যোনির সংক্রমণ এবং কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে।

কয়েকটি প্রাকৃতিক উপায়:

  • টক দই: টক দইতে ল্যাকটিক অ্যাসিড থাকে যা যোনির ত্বককে ফর্সা করতে সাহায্য করে।
  • বেসন: বেসন একটি প্রাকৃতিক স্ক্রাবার যা মৃত কোষ অপসারণ করতে এবং যোনির ত্বককে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে।
  • অ্যালোভেরা: অ্যালোভেরা জেল যোনির ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করতে এবং লালভাব কমাতে সাহায্য করে।
  • হলুদ: হলুদের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি গুণাবলী যোনির ত্বককে ফর্সা করতে এবং সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।
  • লেবুর রস: লেবুর রসে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিড যোনির ত্বককে ফর্সা করতে সাহায্য করে।

সতর্কতা:

  • যোনি ফর্সা করার ক্রিম ব্যবহারের আগে অবশ্যই একজন ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।
  • এই ক্রিমগুলো দীর্ঘ সময় ব্যবহার করলে ত্বকের ক্ষতি হতে পারে।
  • গর্ভবতী বা স্তন্যদানকারী মায়েদের এই ক্রিম ব্যবহার করা উচিত নয়।
  • প্রাকৃতিক উপায় ব্যবহার করার আগে অ্যালার্জি পরীক্ষা করে নিন।

মনে রাখবেন:

  • যোনির ত্বকের রঙ শরীরের অন্যান্য ত্বকের রঙের চেয়ে গাঢ় হতে পারে। এটি সম্পূর্ণ স্বাভাবিক এবং এটির জন্য লজ্জিত হওয়ার কোন কারণ নেই।
  • যোনির স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। নিয়মিত সাবান ও পানি দিয়ে যোনি পরিষ্কার করুন এবং সুতির অন্তর্বাস ব্যবহার করুন।

আরও তথ্যের জন্য একজন ডাক্তার বা চর্ম বিশেষজ্ঞের সাথে পরামর্শ করুন।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “যোনি ফর্সা করার ক্রিমের নাম । মেয়েদের যোনি ফর্সা করার ক্রিমের নাম”

Your email address will not be published. Required fields are marked *