লক্ষন ছাড়া গর্ভবতী । কিনা তা জানার উপায়

320.00৳ 

সরাসরি কিনতে ফোন করুন: 01622913639</span>

♣ ঢাকার বাহিরে থেকে অর্ডার করতে চাইলে ১৫০ টাকা অগ্রিম ডেলিভারি পরিশোধ করুন ।

<strong>ব্যবহারের সুবিধা;&amp;lt;/strong&gt;&amp;lt;br /&amp;gt;১, আপনার লিঙ্গ মোটা এবং বড় করবে।<br />৩, পূর্বের তুলনায় সময় বাড়াবে এবং সময় দীর্ঘায়িত করবে।
৪, আগের থেকে বেশি সময় স্ত্রী সহবাস করতে পারবেন।
ss=”yoast-text-mark” />>৫, স্ত্রীকে দ্রুত আনন্দ দেওয়া যায় এবং স্ত্রীর অর্গাজম করা সম্ভব।
৬, মেয়েরা পরিপূর্ণ যৌন তৃপ্তি লাভ  লাভ করবে।

730 in stock

Description

লক্ষন ছাড়া গর্ভবতী ।  লক্ষণ ছাড়া গর্ভবতী হওয়া সম্ভব। অনেক নারী গর্ভধারণের প্রথম দিকে কোন লক্ষণ অনুভব করেন না। আরো পড়ুনঃ মেয়েদের যোনি টাইট করার ক্রিম কিনতে এখনই ক্লিক করুন

লক্ষন ছাড়া গর্ভবতী

সম্ভব

  • প্রাথমিক পর্যায়ে: অনেক গর্ভবতী নারী, বিশেষ করে প্রাথমিক পর্যায়ে, কোন লক্ষণ অনুভব করেন না।
  • ব্যক্তিগত ভিন্নতা: লক্ষণ অনুভব করা ব্যক্তিভেদে ভিন্ন হয়।
  • নিয়মিত মাসিক: কিছু নারী গর্ভবতী অবস্থায়ও নিয়মিত মাসিকের মত রক্তপাত অনুভব করেন।
  • হালকা লক্ষণ: কিছু নারীর লক্ষণ এতই হালকা হয় যে তারা তা গর্ভধারণের সাথে সম্পর্কিত বুঝতে পারেন না।

কিছু লক্ষণ:

  • পিরিয়ড মিস: গর্ভধারণের সবচেয়ে স্পষ্ট লক্ষণ হল পিরিয়ড বন্ধ হয়ে যাওয়া।
  • হালকা রক্তপাত: গর্ভধারণের সময় কিছু নারীর হালকা রক্তপাত বা “স্পটিং” হতে পারে।
  • বমি বমি ভাব: বিশেষ করে সকালে বমি বমি ভাব, ‘মর্নিং সিকনেস’ নামে পরিচিত।
  • স্তন স্পর্শকাতরতা: স্তন ফুলে ওঠা, স্পর্শকাতরতা বেড়ে যাওয়া।
  • বারবার প্রস্রাব: বারবার প্রস্রাবের বেগ অনুভব করা।
  • ক্লান্তি: অস্বাভাবিক ক্লান্তি ও দুর্বলতা।গর্ভধারণের ফলে ক্লান্তি বোধ হতে পারে।
  • মাথাব্যথা: মাথাব্যথা ও মাথা ঘোরা।
  • খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন: খাবারের প্রতি অরুচি বা নতুন খাবারের প্রতি আকাঙ্ক্ষা।

নিশ্চিত হওয়ার উপায়:

  • গর্ভধারণ পরীক্ষা: প্রস্রাব বা রক্তের গর্ভধারণ পরীক্ষা সবচেয়ে নির্ভুল উপায়।
  • ডাক্তারের পরামর্শ: লক্ষণ থাক বা না থাক, ডাক্তারের পরামর্শ ও পরীক্ষা গর্ভধারণ নিশ্চিত করতে সাহায্য করবে।

মনে রাখবেন:

  • লক্ষণ অনুভব না করলেও গর্ভবতী হওয়া সম্ভব।
  • অনিয়মিত মাসিক, হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া,

সতর্কতা:

  • লক্ষণ অনুভব না করলেও নিয়মিত গর্ভধারণ পরীক্ষা করা উচিত।
  • গর্ভধারণের পর ডাক্তারের পরামর্শ ও নিয়মিত চেক-আপ গুরুত্বপূর্ণ।

কিছু ক্ষেত্রে লক্ষণহীন গর্ভধারণের কারণ

  • নিয়মিত মাসিক: যারা নিয়মিত মাসিক চক্র অনুসরণ করে তাদের ক্ষেত্রে, গর্ভধারণের প্রাথমিক লক্ষণ (মাসিক বাদ যাওয়া) অনুভব নাও হতে পারে।
  • হালকা লক্ষণ: কিছু নারীর গর্ভধারণের লক্ষণ খুবই হালকা হয়, যা তারা সহজেই উপেক্ষা করে যেতে পারে।
  • ব্যক্তিগত পার্থক্য: প্রতিটি নারীর শরীর গর্ভধারণের প্রতি ভিন্নভাবে প্রতিক্রিয়া জানায়।

আপনি যদি মনে করেন যে আপনি গর্ভবতী হতে পারেন, তাহলে নিশ্চিত হওয়ার জন্য:

  • একটি গর্ভধারণ পরীক্ষা করুন: প্রেগনেন্সি টেস্ট কিট সহজেই বাজারে পাওয়া যায় এবং এটি গর্ভধারণের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য উপায়।
  • একজন ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন: ডাক্তার আপনার গর্ভধারণ নিশ্চিত করতে পারবেন এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিতে পারবেন।

লক্ষণ ছাড়া গর্ভধারণ স্বাভাবিক হলেও, নিয়মিত ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা গুরুত্বপূর্ণ।

কিছু টিপস:

  • গর্ভধারণের পূর্বে ফোলিক অ্যাসিড সম্পূরক খাওয়া শুরু করুন।
  • স্বাস্থ্যকর খাবার খান এবং নিয়মিত ব্যায়াম করুন।
  • ধূমপান, মদ্যপান এবং মাদকদ্রব্য ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।
  • আপনার ডাক্তারের সাথে আপনার কোন প্রশ্ন বা উদ্বেগ থাকলে আলোচনা করুন।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “লক্ষন ছাড়া গর্ভবতী । কিনা তা জানার উপায়”

Your email address will not be published. Required fields are marked *