শবে বরাত সম্পর্কে হাদিস

850.00৳ 

সরাসরি কিনতে ফোন করুন: 01622913639

♣ ঢাকার বাহিরে থেকে অর্ডার করতে চাইলে ১৫০ টাকা অগ্রিম ডেলিভারি পরিশোধ করুন ।

ব্যবহারের সুবিধা;
১, আপনার লিঙ্গ মোটা এবং বড় করবে।
৩, পূর্বের তুলনায় সময় বাড়াবে এবং সময় দীর্ঘায়িত করবে।
৪, আগের থেকে বেশি সময় স্ত্রী সহবাস করতে পারবেন।
৫, স্ত্রীকে দ্রুত আনন্দ দেওয়া যায় এবং স্ত্রীর অর্গাজম করা সম্ভব।
৬, মেয়েরা পরিপূর্ণ যৌন তৃপ্তি লাভ  লাভ করবে।

745 in stock

Description

শবে বরাত সম্পর্কে হাদিস

শবে বরাত সম্পর্কে হাদিস

বরাতের ফজিলত:

  • আল্লাহর রহমত বর্ষিত হয়: হজরত আবু মুসা আল-আশআরী (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সাঃ) বলেছেন, “নিশ্চয়ই আল্লাহ মধ্য শাবানের রাতে তাঁর সৃষ্টির দিকে দৃষ্টিপাত করেন এবং মুশরিক ও বিদ্বেষপোষণকারী ব্যতীত সকলকে ক্ষমা করে দেন।” (তিরমিযী)
  • ভাগ্য লিখন: কিছু হাদিসে বর্ণিত আছে যে, এই রাতে পরবর্তী বছরের জন্য ভাগ্য লিপিবদ্ধ করা হয়। তবে, এই হাদিসগুলোর সনদ দুর্বল।
  • দোয়া কবুলের রাত: হাদিসে বর্ণিত আছে যে, এই রাতে আল্লাহ তায়ালা দোয়া কবুল করেন।

আরো পড়ুনঃ দ্রুত চিকন হওয়ার ওষুধ DETOXI SLIM কিনতে এখনই ক্লিক করুন

শবে বরাতের আমল:

  • রাত জাগরণ: হাদিসে রাত জাগরণ ও ইবাদতের প্রচারণা করা হয়েছে।
  • নামাজ: নফল নামাজ পড়া।
  • কুরআন তেলাওয়াত:
  • দোয়া:
  • তাসবিহ ও তাহলীল:
  • ক্ষমা চাওয়া:
  • দান-সদকা:

কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়:

  • শবে বরাতের রাত নির্ধারণ: শবে বরাতের রাত নির্ধারণে মতভেদ রয়েছে।
  • বিশেষ নামাজ: কিছু বিশেষ নামাজের কথা প্রচলিত আছে, যদিও তা সহীহ হাদিসে প্রমাণিত নয়।
  • অলীক রীতিনীতি: শবে বরাতের সাথে কিছু অলীক রীতিনীতি যুক্ত আছে, যা ইসলাম সমর্থন করে না।

 

শবেবরাত সম্পর্কে হাদিস:

ফযিলত:

  • মহান আল্লাহ তা’আলা এই রাতে তাঁর সৃষ্টির প্রতি দৃষ্টিপাত করেন এবং মুশরিক ও বিদ্বেষপোষণকারী ব্যতীত সকলকে ক্ষমা করে দেন। (তিরমিযী, ইবনে মাজাহ)
  • এই রাতে ভাগ্যলিপি লেখা হয়। (সুনানে আন-নাসাঈ)
  • এই রাতে জাগ্রত থাকা ও ইবাদত করা অত্যন্ত ফজিলতপূর্ণ। (মুসলিম)

আরো পড়ুনঃম্যাজিক কনডম কিনতে এখনই ক্লিক করুন

করণীয়:

  • নফল নামাজ, তেলাওয়াত, দোয়া-দরুদ ও তাসবিহ তাহলিল করা।
  • পাপ-ক্ষমা চাওয়া ও আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করা।
  • শরীর ও মনকে পবিত্র রাখা।
  • গরিব-দুঃখীদের সাহায্য করা।

বর্জনীয়:

  • শবে বরাতের বিশেষ নামাজ, বিশেষ পোশাক পরিধান, বিশেষ খাবার খাওয়া ইত্যাদির ব্যাপারে কোন সহীহ হাদিস নেই।
  • এই রাতে রাত জাগা বাধ্যতামূলক নয়।
  • এই রাতে কুসংস্কার ও ভ্রান্ত ধারণা থেকে সাবধান থাকা।

কিছু গুরুত্বপূর্ণ হাদিস:

  • হজরত আবু মূসা আল-আশআরী (রাঃ) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন, “নিশ্চয়ই আল্লাহ তা’আলা মধ্য শা’বানের রাতে সমস্ত সৃষ্টির দিকে বিশেষ নজর দেন ও মুশরিক (আল্লাহর সাথে শিরককারী) এবং মুশাহিন (হিংসুক) ব্যতীতসকলকে ক্ষমা করে দেন।” (তিরমিযী, ইবনে মাজাহ)
  • হজরত আয়েশা (রাঃ) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন, “যখন মধ্য শা’বানের রাত হয় তখন তোমরা রাত জেগে ইবাদত কর এবং দিনের বেলায় রোজা রাখ।” (মুসলিম)
  • হজরত আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন, “নিশ্চয়ই আল্লাহ তা’আলা মধ্য শা’বানের রাতে বান্দাদের দিকে তাকান এবং বলেন, ‘কে আছে যে আমার কাছে ক্ষমা চাইবে যাতে আমি তাকে ক্ষমা করি? কে আছে যে আমার কাছে দান চাইবে যাতে আমি তাকে দান করি? কে আছে যে আমার কাছে দুঃখের প্রার্থনা করবে যাতে আমি তার দুঃখ দূর করি?'” (তিরমিযী)

সতর্কতা:

  • শবে বরাতের বিশেষ নামাজ: কিছু লোক শবে বরাতের বিশেষ নামাজের কথা বলে থাকে। কিন্তু এই নামাজের ব্যাপারে কোন সহীহ হাদিস নেই।
  • অতিরঞ্জিত রীতিনীতি: শবে বরাতের রাতে কিছু অতিরঞ্জিত রীতিনীতি পালন করা হয় যা ইসলামের দিক থেকে নিষিদ্ধ।

উল্লেখ্য: শবে বরাত একটি ফজিলতপূর্ণ রাত। এ রাতে ইবাদত-বন্দেগী করে আল্লাহর কাছে ক্ষমা ও রহমত প্রার্থনা করা উচিত। তবে এ রাতের ফজিলত সম্পর্কে অতিরঞ্জিত ধারণা পোষণ করা বা ভুল রীতিনীতি পালন করা থেকে বিরত থাকতে হবে। শবে বরাত সম্পর্কে প্রচলিত অনেক হাদিস দুর্বল বা জাল। তাই সহীহ হাদিসের আলোকে এই রাতের আমল করা উচিত।

উপসংহার:

শবে বরাত একটি ফজিলতপূর্ণ রাত। এই রাতে রাত জাগরণ, ইবাদত-বন্দেগী, দোয়া ও তওবা করার মাধ্যমে আল্লাহর রহমত লাভ করা উচিত।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “শবে বরাত সম্পর্কে হাদিস”

Your email address will not be published. Required fields are marked *