Home Questions উপাত্ত কাকে বলে

উপাত্ত কাকে বলে

0
445
উপাত্ত কাকে বলে
উপাত্ত কাকে বলে

অনলাইন শপ www.Gazivai.com ( গাজী ভাই ডট কম) এর পক্ষ থেকে আজকের আর্টিকেলটিতে আমাদের আলোচনার মূল প্রতিপাদ্য বিষয় হলো উপাত্ত। উপাত্ত কি, উপাত্ত কাকে বলে এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করব।

আজকের আর্টিকেলে আমাদের আলোচনার বিষয়বস্তু গুলো হল: উপাত্ত কাকে বলে, উপাত্ত কাকে বলে কত প্রকার, উপাত্ত কাকে বলে কত প্রকার ও কি কি, উপাত্ত কাকে বলে Ict, উপাত্ত কাকে বলে আইসিটি, উপাত্ত কাকে বলে Class 6, বিন্যস্ত উপাত্ত কাকে বলে, তথ্য উপাত্ত কাকে বলে, পরিসংখ্যানের উপাত্ত কাকে বলে, প্রাথমিক উপাত্ত কাকে বলে ইত্যাদি বিষয় সম্পর্কে জানব।

আমাদের www.gazivai.com ওয়েবসাইট থেকে আপনার প্রয়োজনীয় সকল পণ্য কেনাকাটা করুন। সবথেকে কম দামে পণ্য কিনতে ভিজিট করুন www.gazivai.com

উপাত্ত কাকে বলে

যে সকল তথ্য কোন নির্দিষ্ট কোন চলকের বা একসেট চলকের গুণগত ও পরিমাণগত ধর্মগুলোকে প্রকাশ করে বেশিরভাগ সময় কোন পরিমাপ প্রক্রিয়ার ফলে উপযুক্ত সঙ্গী তো হয় তাকে বলা হয় উপাত্ত।

উপাত্ত কাকে বলে

আরো পড়ুনঃ লিংগ মোটা বড় করার মারাল জেল কিনতে ক্লিক – এখনই কিনুন

উপাত্তকে কানেকটিভিটি গ্রাফ, লেখচিত্র বা চলকসমূহের মান তালিকা রূপে উপস্থাপন করা হতে পারে। উপাত্তকে অনেক সময় সবচেয়ে নিচের স্তরের বিমূর্ত ধারণা হিসাবে দেখা হয়, যেখান থেকে তথ্য বা জ্ঞান আহরণ করা হয়ে থাকে।

তথ্য ও জ্ঞানের ধারণাকে অনেক ক্ষেত্রেই এক করে দেখা হয়। এদের পার্থক্য মূলত বিমূর্ত ধারণায়। উপাত্ত আছে এই বিমূর্ত ধারণার সবচেয়ে নিচের স্তরে, এর উপরের স্তরে তথ্য এবং এই তিনটির মধ্যে সবচেয়ে উপরের স্তরে আছে জ্ঞান। উপাত্ত নিজে থেকে কোনো অর্থ বহন করে না। 

কোনো উপাত্ত থেকে তথ্য আহরণের জন্য প্রথমে এই উপাত্তকে অবশ্যই এমন ভাবে ব্যাখ্যা করতে হবে যেন এটা অর্থবহ হয়ে ওঠে। যেমন, সময় সাপেক্ষে কোনো দেশের জনসংখ্যার তালিকা হতে পারে ‘উপাত্ত’।

উপাত্ত কাকে বলে

আরো পড়ুনঃ ২০ মিনিট সেক্স করার মেজিক কনডম কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

উপাত্ত কাকে বলে কত প্রকার

দৈনন্দিন এবং ব্যবহারিক বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিভিন্ন অর্থে তথ্য শব্দটি ব্যবহৃত হয়। সাধারণ ভাবে বললে তথ্য বলতে এমন কোনো ধারণা কে বোঝায় যা, যোগাযোগ, নিয়ন্ত্রণ, সীমা, উপাত্ত, রূপ, নির্দেশনা, মানসিক উদ্দীপনা, জ্ঞান, অর্থ, প্যাটার্ন, অণুধাবন ও প্রকাশ এসবের সাথে সম্পর্কিত।

বেনিয়ন-ডেভিস তথ্য ও উপাত্তের পৃথকিকরণে চিহ্নের ধারণা ব্যবহার করেছেন; উপাত্ত হচ্ছে চিহ্ন, এবং যখন এই চিহ্ন সমূহ দিয়ে কোনো কিছু নির্দেশ করা হয় তখনই তা হয়ে যায় তথ্য। মানুষ এবং কম্পিউটার তাদের সংগৃহীত উপাত্তের উপর প্যাটার্ন আরোপ করে।

আরো পড়ুন মেয়েদের নেট বা জর্জেট ব্রা কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুন মেয়েদের ৩ পিস জাইংগা কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের সাইজের স্পোর্টস ব্রা কিনতে ক্লিক – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের  ফোম কাপ ব্রা সরাসরি কিনতে ক্লিক – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের সুতি স্পোর্টস ব্রা সরাসরি কিনতে ক্লিক  – এখনই কিনুন

আরো পড়ুন মেয়েদের সেক্সি বিকিনি ব্রা কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের নাইট ড্রেস সরাসরি কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ ৩ পাট কুচি বোরকা সরাসরি কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ  ২ পাট কুচি বোরকা সরাসরি কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ  খিমার বুরকা সরাসরি কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

এই প্যাটার্ন সমূহকে তথ্য হিসাবে দেখা যেতে পারে, যে তথ্য থেকে পরবর্তীকালে জ্ঞান আহরিত হবে। নিরীক্ষণ যোগ্য কোনো চিহ্ন রেখে যায় এমন কোনো ঘটনাকেই সেই উপাত্তের আলোকে পুনঃরানুসন্ধান করা সম্ভব। কোনো পূর্বঘটিত ঘটনা ও তার রেখে যাওয়া চিহ্নের মধ্যকার সম্পর্কটা হারিয়ে গেলে সেই চিহ্নকে উপাত্ত হিসেবে গ্রহণ করা হয় না।

সংখ্যাভিত্তিক কোন তথ্য হচ্ছে একটি পরিসংখ্যান। আর তথ্য নির্দেশক সংখ্যাগুলো হচ্ছে পরিসংখ্যানের উপাত্ত।কোন একটি নির্দিষ্ট বৈষিষ্ট্যের সংখ্যাবাচক পরিমাপকে উপাত্ত বলে। এটাকে আরো সহজভাবে বলা যায়- সংখ্যাভিত্তিক যে তথ্য থাকে সেই তথ্যকে পরিসংখ্যান বলে আর, পরিসংখ্যানে যে সংখ্যাগুলো থাকে সেগুলো হচ্ছে উপাত্ত।

উপাত্ত কাকে বলে কত প্রকার ও কি কি

উপাত্ত ২ প্রকার-

১. প্রাথমিক উপাত্ত

২. মাধ্যমিক উপাত্ত

সরাসরি যে উপাত্ত সংগ্রহ করা হয় সেটাকে বলা হয় প্রাথমিক উপাত্ত। এবং পরোক্ষভাবে বা, দ্বিতীয় কোন উৎস থেকে যে উপাত্ত সংগ্রহ করা হয় সেটাকে বলে মাধ্যমিক উপাত্ত। মনে করুন আপনি সরাসরি কয়েকটি জায়গার তাপমাত্রা গ্রহন করলেন, এটি প্রাথমিক উপাত্ত। আর, বাংলা পরিসংখ্যান ব্যুরো থেকে জনসংখ্যা বিষয়ক উপাত্ত গ্রহণ করলেন, এটি মাধ্যমিক।

আরও পড়ুন:  সানি লিওনের এক্সপ্রেস ভিডিও

আরও পড়ুন: চেহারা সুন্দর করার দোয়া

আরও পড়ুন: ভার্জিন মেয়ে চেনার উপায় ছবি সহ

আরও পড়ুন: মালয়েশিয়া টু বাংলাদেশ বিমান ভাড়া কত

উৎস থেকে সরাসারি যে উপাত্ত সংগৃহীত হয় তাই হলো প্রাথমিক উপাত্ত। প্রাথমিক উপাত্তের নির্ভরযোগ্যতা অনেক বেশি। করনএটি উৎস থেকে সরাসারি সংগ্রহ করা হয়ে থাকে।

আরও পড়ুন: সর্দির ট্যাবলেট ১০ টি ভালো ঔষধ

আরও পড়ুন: মাথা ব্যথার ১০ টি ঔষধের নামের তালিকা

আরও পড়ুন: বড় ভাইকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা ? বড় ভাইকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস

আরও পড়ুন: লিংগ মোটা করার উপায়

পরোক্ষ উৎস থেকে সংগৃহীত উপাত্ত সমূহকে মাধ্যমিক উপাত্ত বলে। যেমন পৃথিবীর কয়েকটি বড় শহরের জানুয়ারী মাসের তাপমাত্রা আমাদের প্রয়োজন। যেভাবে গণিতের প্রাপ্ত নম্বরগুলো সংগ্রহ করেছি সেভাবে তাপমাত্রার জন্য আমাদের সংগ্রহ করা সম্ভব নয়।

এক্ষেত্রে কোন প্রতিষ্ঠানের সংগৃহীত উপাত্ত আমরা আমাদের প্রয়োজনে ব্যবহার করতে পারি। আর এটি হবে মাধ্যমিক উপাত্ত। এভাবে সংগৃহীত উপাত্তের নির্ভর যোগ্যতা অনেক কম হয়ে থাকে।

উপাত্ত কাকে বলে Ict

অন্যভাবেও একে ভাগ করা যায়

১. অবিন্যস্ত উপাত্ত

২. বিন্যস্ত উপাত্ত

অবিন্যস্ত উপাত্ত:উপাত্তগুলো যদি কোন প্রকার বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী সাজানো না হয় তখন তাকে অবিন্যস্ত উপাত্ত বলে।

বিন্যস্ত উপাত্ত:সংগৃহীত উপাত্ত কোনো বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী বা মানের উর্ধ্বক্রম বা অধক্রম অনুসারে সাজানো হলে তাকে বিন্যস্ত উপাত্ত বলে।

উপাত্ত কাকে বলে আইসিটি

একটি নির্দিষ্ট বৈষিষ্ট্যের সংখ্যাবাচক নিদিষ্ট পরিমাপকে উপাত্ত বলে। এটাকে আরো সহজভাবে বলা যায়- গণনা বা পরিমাপের মাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্যই কে বলা হয় উপাত্ত।উপাত্ত (DATA) হলো তথ্যের ক্ষুদ্রতম একক যা এলোমেলো বা অগোছালো কয়েকটি অক্ষর, সংখ্যা, চিহ্ন ইত্যাদি হতে পারে।

বিক্ষিপ্ত অবস্থায় থাকা যে কোনো বর্ণ, চিহ্ন বা সংখ্যা হলো ডেটা। ডেটা হলো প্রক্রিয়াকরণের পূর্ব অবস্থা যা ইনপুট হিসেবে ব্যবহৃত হয়। ডেটা কোনো কিছুর পূর্ণাঙ্গ বা অর্থবহ ধারণা দিতে পারে না।

  • সুনির্দিষ্ট ফলাফল পাওয়ার জন্য প্রক্রিয়াকরণে ব্যবহৃত কাঁচামাল সমূহকে ডেটা বা উপাত্ত বলে। অন্যদিকে ডেটাকে প্রক্রিয়াকরণ করে যে অর্থবহ ফলাফল পাওয়া যায়, তাকে তথ্য বলে। 
  • ডেটা হচ্ছে প্রক্রিয়াকরণের পূর্বের অবস্থা। তথ্য হচ্ছে প্রক্রিয়াকরণের পরের অবস্থা।
  • উপাত্ত সরাসরি ব্যবহার করা যায় না। অন্যদিকে তথ্য সরাসরি ব্যবহার করা যায়।
  • উপাত্ত দ্বারা যে কোন বিষয়ে পুরোপুরি ভাবার্থ প্রকাশ পায় না। অন্যদিকে তথ্য দ্বারা যে কোন বিষয়ে পুরোপুরি ভাবার্থ প্রকাশ পায়।
  • উপাত্ত তথ্যের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহার করা হয়। অন্যদিকে ডেটা প্রক্রিয়াকরণের পর তথ্যে রূপান্তরিত হয়।
  • সব উপাত্তই তথ্য নয়। অন্যদিকে সব তথ্যই উপাত্ত হতে পারে।
  • উপাত্ত রূপান্তরের সময় সমস্ত অপ্রাসঙ্গিক তথ্য এবং পরিসংখ্যান বাছাই করা হয়। কিন্তু তথ্য সবসময় তার প্রয়োজনীয়তা এবং প্রত্যাশার জন্য সুনির্দিষ্ট।

উপাত্ত কাকে বলে Class 6

যে সকল তথ্য কোন নির্দিষ্ট কোন চলকের বা একসেট চলকের গুণগত ও পরিমাণগত ধর্মগুলোকে প্রকাশ করে বেশিরভাগ সময় কোন পরিমাপ প্রক্রিয়ার ফলে উপযুক্ত সঙ্গী তো হয় তাকে বলা হয় উপাত্ত।

উপাত্তকে কানেকটিভিটি গ্রাফ, লেখচিত্র বা চলকসমূহের মান তালিকা রূপে উপস্থাপন করা হতে পারে। উপাত্তকে অনেক সময় সবচেয়ে নিচের স্তরের বিমূর্ত ধারণা হিসাবে দেখা হয়, যেখান থেকে তথ্য বা জ্ঞান আহরণ করা হয়ে থাকে।

বিন্যস্ত উপাত্ত কাকে বলে

সংগৃহীত উপাত্ত কোনো বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী বা মানের উর্ধ্বক্রম বা অধক্রম অনুসারে সাজানো হলে তাকে বিন্যস্ত উপাত্ত বলে।যে উপাত্তগুলো কোনো বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী বিভিন্ন শ্রেণীতে সাজানো থাকে সেগুলোকে বিন্যস্ত উপাত্ত বলে

তথ্য উপাত্ত কাকে বলে

সুনির্দিষ্ট ফলাফল পাওয়ার জন্য প্রক্রিয়াকরণে ব্যবহৃত কাঁচামাল সমূহকে ডেটা বা উপাত্ত বলে। অন্যদিকে ডেটাকে প্রক্রিয়াকরণ করে যে অর্থবহ ফলাফল পাওয়া যায়, তাকে তথ্য বলে

কোন কিছু সম্পর্কে ধারণা বা জ্ঞান লাভ করতে হলে সেটির সম্পর্কিত বিভিন্ন ডেটাকে যৌক্তিক পরিসজ্জায় উপস্থাপনকেই তথ্য বলে।যেহেতু ডেটাকে যৌক্তিক পরিসজ্জায় উপস্থাপনকেই তথ্য বলা হয় সুতরাং আগে ডেটা সম্পর্কে জানা প্রয়োজন।

আসলে ডেটা হলো তথ্যের ক্ষুদ্রতম একক যা এলোমেলো বা অগোছালো কয়েকটি অক্ষর,সংখ্যা,চিহ্ন বা যে কোন কিছু হতে পারে।ডেটা সাধারণত কোন সুনির্দিষ্ট বা যথাযথ অর্থ প্রকাশ করে না।

কিন্ত এই অগোছালো বা এলোমেলো ডেটাগুলোকে যৌক্তিক কোনো সিকোয়েন্স বা পরিসজ্জায় উপস্থাপন করলে তা একটি যথাযথ অর্থ প্রকাশ করবে যেখান থেকে কিছু সম্পর্কে জ্ঞান বা ধারণা অর্জন সম্ভব হবে।

পরিসংখ্যানের উপাত্ত কাকে বলে

পরিসংখ্যানের বর্ণিত তথ্যাদি যে সংখ্যাগুলোর মাধ্যমে প্রকাশিত হয় তাকে ঐ পরিসংখ্যানের উপাত্ত বলে

প্রাথমিক উপাত্ত কাকে বলে

উপাত্ত অনুসন্ধানকারী সরাসারি উৎস থেকে সংগ্রহ করতে পারে। অর্থাৎ উৎস থেকে সরাসারি যে উপাত্ত সংগৃহীত হয় তাই হলো প্রাথমিক উপাত্ত।উৎস থেকে সরাসারি যে উপাত্ত সংগৃহীত হয় তাই হলো প্রাথমিক উপাত্ত। প্রাথমিক উপাত্তের নির্ভরযোগ্যতা অনেক বেশি। করনএটি উৎস থেকে সরাসারি সংগ্রহ করা হয়ে থাকে।

আমাদের আর্টিকেল সম্বন্ধে কারো কোন অভিযোগ বা পরামর্শ থাকলে নিচে কমেন্ট করে জানাতে পারেন ।আপনার কথা আমরা সাদরে গ্রহণ করব।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

x
error: Content is protected !!