Saturday, November 26, 2022
HomeQuestionsহিসাব বিজ্ঞান কাকে বলে

হিসাব বিজ্ঞান কাকে বলে

অনলাইন শপ www.Gazivai.com ( গাজী ভাই ডট কম) এর পক্ষ থেকে আজকের আর্টিকেলটিতে আমাদের আলোচনার মূল প্রতিপাদ্য বিষয় হলো হিসাব বিজ্ঞান। হিসাব বিজ্ঞান কি, হিসাব বিজ্ঞান কাকে বলে এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করব।

আজকের আর্টিকেলে আমাদের আলোচনার বিষয়বস্তু গুলো হল হিসাব বিজ্ঞান কাকে বলে, হিসাববিজ্ঞান খতিয়ান কাকে বলে,আর্থিক হিসাব বিজ্ঞান কাকে বলে, হিসাব বিজ্ঞানের ভাষায় সম্পদ কাকে বলে, ব্যবস্থাপনা হিসাববিজ্ঞান কাকে বলে ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করব।

আমাদের www.gazivai.com ওয়েবসাইট থেকে আপনার প্রয়োজনীয় সকল পণ্য কেনাকাটা করুন। সবথেকে কম দামে পণ্য কিনতে ভিজিট করুন www.gazivai.com

হিসাব বিজ্ঞান কাকে বলে

যে বিজ্ঞানের মাধ্যমে একটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান কিংবা কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান লেনদেন লিপিবদ্ধ করা হয়। অর্থাৎ কোন প্রতিষ্ঠান লেনদেন শ্রেণীবদ্ধকরণ, প্রক্রিয়াজাতকরণ, চিহ্নিতকরণ এবং নির্দিষ্ট সময় শেষে আর্থিক বিবরণী প্রস্তুত করন এর প্রক্রিয়াকে বলা হয় হিসাববিজ্ঞান।

হিসাব বিজ্ঞান কাকে বলে

আরো পড়ুনঃ চুল কাটার মেশিন সরাসরি কিনতে ক্লিক – এখনই কিনুন

যে বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতির মাধ্যমে কোন ব্যবসা বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের দৈনিন্দন লেনদেন শ্রণীবদ্ধকরণ করা হয়, তাকেই হিসাব বিজ্ঞান বলে।আবার অন্যভাবে বলা যায়, হিসাব বিজ্ঞান হচ্ছে  লিপিবদ্ধকরণ,পরীক্ষা, বিশ্লেষণ এবং আর্থিক বিবরণীর উপস্থাপন পদ্ধতির মাধ্যমে অর্থনৈতিক ঘটনাগুলি পর্যবেক্ষণ, সনাক্তকরণ, তদন্ত ও উপস্থাপনের বিজ্ঞান।

হিসাব বিজ্ঞান হল একটি ব্যবসার সাথে সম্পর্কিত আর্থিক লেনদেন রেকর্ড করার প্রক্রিয়া। হিসাব বিজ্ঞান প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে এই লেনদেনের সারসংক্ষেপণ, বিশ্লেষণ ও রিপোর্টিং। হিসাব বিজ্ঞানে ব্যবহৃত আর্থিক বিবৃতিগুলি একটি নির্দিষ্ট সময়ের আর্থিক লেনদেনের সংক্ষিপ্ত সারাংশ, কোম্পানির ক্রিয়াকলাপ, আর্থিক অবস্থান এবং নগদ লেনদেনের শ্রেণীবিন্যাস।

হিসাব বিজ্ঞান কাকে বলে

আরো পড়ুনঃ লিংগ মোটা বড় করার মারাল জেল কিনতে ক্লিক – এখনই কিনুন

হিসাব বিজ্ঞান খতিয়ান কাকে বলে

খতিয়ান হচ্ছে একটি হিসাবনিকাশের পাকা বইতে প্রতিষ্ঠানের যাবতীয় লেনদেনগুলোর বিভন্ন প্রকার পক্ষসমূহকে পৃথক পৃথক শিরোনামের আওতায় শ্রেনীবদ্ধভাবে এবং সংক্ষিপ্তকারে লিপিবদ্ধ করা। এক কথায় খতিয়ান হচ্ছে একটি প্রতিষ্ঠানের সকল হিসাবের সমষ্টিগত রুপ।

যে শাস্ত্র পাঠ করে কোনাে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের যাবতীয় আর্থিক কার্যাবলি হিসাবের বইতে সুষ্ঠভাবে লিপিবব্ধ করা যায়, এবং নির্দিষ্ট সময় শেষে এর সঠিক ফলাফল নিরূপণ করা যায়, তাকে হিসাববিজ্ঞান বলে। 

আরো পড়ুন মেয়েদের নেট বা জর্জেট ব্রা কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুন মেয়েদের ৩ পিস জাইংগা কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের সাইজের স্পোর্টস ব্রা কিনতে ক্লিক – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের  ফোম কাপ ব্রা সরাসরি কিনতে ক্লিক – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের সুতি স্পোর্টস ব্রা সরাসরি কিনতে ক্লিক  – এখনই কিনুন

আরো পড়ুন মেয়েদের সেক্সি বিকিনি ব্রা কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের নাইট ড্রেস সরাসরি কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ ৩ পাট কুচি বোরকা সরাসরি কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ  ২ পাট কুচি বোরকা সরাসরি কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ  খিমার বুরকা সরাসরি কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

জে, আর, বাটলিবয় এর মতেঃ কারবারি লেনদেনসমূহ হিসাবের বহিতে লিপিবদ্ধ করার কলাকৌশলকে হিসাববিজ্ঞান বলে।

এফ. ডব্লিউ, পিক্সলির মতেঃ হিসাব বিজ্ঞান এমন এমন একটি বিজ্ঞান, যা সব ধরনের আর্থিক লেনদেন লিপিবদ্ধ করার বিষয়াদি নিয়ে আলােচনা করে

আমেরিকান একাউন্টিং-অ্যাসােসিয়েশন মতেঃ যে পদ্ধতি অর্থনৈতিক তথ্য নির্ণয় পরিমাপ ও সরবরাহ করে এর ব্যবহারকারীদের বিচার ও সিদ্ধান্ত গ্রহণে সাহায্যে করে, তাকে হিসাববিজ্ঞান বলে

এ. ডব্লিউ, জনসনের মতেঃ টাকায় পরিমাপযােগ্য কারবারি লেনদেনসমূহ সংগ্রহ, সংকলন, লিপিবদ্ধকরণ, প্রতিবেদন প্রস্তুতকরণ, বিশ্লেষণ ও ব্যাখ্যাকরণকে সামগ্রিকভাবে বলা হয় হিসাববিজ্ঞান।

আমেরিকার সনদপ্রাপ্ত হিসাববিজ্ঞানী সংস্থার মতেঃ অর্থের দ্বারা নিরূপণযােগ্য লেনদেন ও ঘটনাসমূহের সুনির্দিষ্ট ও সুসংবদ্ধ প্রণালিতে লিপিবদ্ধকরণ, শ্রেণিবদ্ধকরণ ও সংক্ষিপ্তকরণের মাধ্যমে আর্থিক লেনদেন পর্যালােচনা করে ব্যবসায়ের সঠিক চিত্র উপস্থাপন করাকে হিসাববিজ্ঞান বলে।

আরও পড়ুন:  সানি লিওনের এক্সপ্রেস ভিডিও

আরও পড়ুন: চেহারা সুন্দর করার দোয়া

আরও পড়ুন: ভার্জিন মেয়ে চেনার উপায় ছবি সহ

আরও পড়ুন: মালয়েশিয়া টু বাংলাদেশ বিমান ভাড়া কত

আর্থিক হিসাব বিজ্ঞান কাকে বলে

হিসাববিজ্ঞান: হিসাববিজ্ঞান এমন একটি প্রক্রিয়া, যার মাধ্যমে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের যাবতীয় আর্থিক কার্যাবলী ( খরচ পরিশোধ, আয় আদায়, সম্পদ ক্রয় ও বিক্রয়, পন্য ক্রয় ও বিক্রয়, দেনাদার হতে আদায় এবং পাওনাদার পরিশোধ ইত্যাদি হিসাবের বইতে সুষ্ঠুভাবে পিলিবদ্ধ করা যায় এবং নির্দিষ্ট সময় শেষে আর্থিক কার্যাবলির ফলাফল জানা যায়।

আরও পড়ুন: সর্দির ট্যাবলেট ১০ টি ভালো ঔষধ

আরও পড়ুন: মাথা ব্যথার ১০ টি ঔষধের নামের তালিকা

আরও পড়ুন: বড় ভাইকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা ? বড় ভাইকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস

আরও পড়ুন: লিংগ মোটা করার উপায়

সাধারণভাবে ও প্রচলিত ধারণা অনুযায়ী-বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে কারবারি লেনদেনসমূহ লিপিবদ্ধ করার কৌশলকে হিসাববিজ্ঞান বলে।হিসাববিজ্ঞানের প্রাথমিক উদ্দেশ্য বিবেচনা করেনিম্নোক্তভাবে হিসাববিজ্ঞানের সংজ্ঞা প্রদান করাযেতে পারেঃ কারবারের লাভ-ক্ষতি ও আর্থিক অবস্থা নির্ধারণের জন্যবিজ্ঞানসম্মত উপায়ে কারবারিলেনদেনসমূহকে স্থায়ীভাবে লিপিবদ্ধ করার কৌশলকে হিসাববিজ্ঞান বলে।

হিসাবশাস্ত্রবিদ ডব্লিউ জনসন হিসাববিজ্ঞানেরসংজ্ঞায় বলেছেন-‘অর্থের অংকে ব্যবসায়ের বিভিন্ন লেনদেনসমূহসংগ্রহকরণ, সংবদ্ধকরণ,লিপিবদ্ধকরণ, আর্থিকপ্রতিবেদন তৈরিকরণ এবং ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষকে এই সব প্রতিবেদন বিশ্লেষণ ও বিশদব্যাখ্যা করে যথাযথ তথ্য যোগানক হিসাববিজ্ঞান বলে।

’সংজ্ঞাগুলো বিশ্লেষণ করে নিম্নোক্তভাবেহিসাববিজ্ঞানের সংজ্ঞা প্রদান করাযেতে পারে-কারবারের মালিক, ব্যবস্থাপক ও কারবারের সাথেসংশ্লিষ্ট অন্য পক্ষসমূহের কারবার সম্পর্কে সঠিকসিদ্ধান্ত গ্রহণের সুবিধার্থে কারবারের লেনদেনসমূহকে বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে লিপিবদ্ধকরণ, শ্রেণীবদ্ধকরণ,সংক্ষিপ্তকরণ,আর্থিক প্রতিবেদন প্রস্তুতকরণ ও ব্যাখ্যা বিশ্লেষণের কার্যক্রমকে হিসাববিজ্ঞান বলে।

হিসাব বিজ্ঞানের ভাষায় সম্পদ কাকে বলে

হিসাববিজ্ঞান হল অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান যেমন ব্যবসায় বা সংঘবদ্ধ দলের আর্থিক ও অনার্থিক তথ্য পরিমাপণ, প্রক্রিয়াজাতকরণ ও যোগাযোগের মাধ্যম। আধুনিক শাখাটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল বেনেডিক্ট কটরুলজেভিক কর্তৃক ১৪৫৮ সালে, ব্যবসায়ী, অর্থনীতিবিদ, বিজ্ঞানী, কুটনীতিক এবং মানবসেবী দুব্রভনিক (ক্রোয়েশিয়া) এবং

ইতালিয়ান গণিতবিদ লুকা প্যাসিওলি ১৪৯৪ সালে ব্যবসায়ের ভাষা হিসেবে স্বীকৃত, হিসাববিজ্ঞান প্রতিষ্ঠানের আর্থিক কর্মকান্ডের ফলাফল পরিমাপ করে এবং এই তথ্য বিভিন্ন ধরনের ব্যবহারকারী, যেমন – বিনিয়োগকারী, ঋণদাতা, ব্যবস্থাপনা এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছে দিয়ে থাকে। হিসাববিজ্ঞান চর্চাকারীগণকে হিসাববিদ বলা হয়। হিসাববিজ্ঞান ও আর্থিক প্রতিবেদন করণ প্রায়শই সমার্থক হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

পণ্য ক্রয়, বিক্রয়, মজুদকরণ, হিসাব নিকাশ, মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনাসহ ব্যবসায়ের অন্যান্য হিসাব সংরক্ষনের জটিল এবং ক্লান্তিকর কাজগুলো আজকাল কম্পিউটার সফটওয়্যারের সাহায্যে অনেক দ্রুততার সাথে করা যায়।

এই সফটওয়্যারগুলো সচরাচর প্রত্যেকটি প্রধান কার্যক্রমের সাথে অন্তর্নিহিতভাবে সংযুক্ত থাকে; এতে করে একটি তথ্য প্রবেশ করালে তা সমস্ত হিসাবে অন্তর্ভুক্ত হয়ে যায়। এই সফটওয়্যারগুলো দিয়ে একজন কর্মী প্রায় ২০০ মানুষের কাজ একাই করে ফেলতে পারে। এই ধরনের একাউন্টিং সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠানের কাজ অনেক সহজ করে দেয় এবং এতে করে পণ্য ও সেবার গুণগত মান বৃদ্ধি এবং অর্থ সাশ্রয় হয়।

হিসাববিজ্ঞান প্রায় হাজার বছর ধরে চর্চিত একটি বিদ্যা। প্রাচীন মেসোপটেমিয়া সভ্যতায় উৎপাদিত ফসল এবং মন্দিরে সংগৃহীত শস্যের হিসাব রাখার জন্য হিসাববিজ্ঞানের প্রাচীনতম পন্থাগুলো ব্যবহৃত হতো।

ব্যবস্থাপনা হিসাব বিজ্ঞান কাকে বলে

নিম্ন ও উচ্চ মূল্যহ্রাস ও মূল্যবৃদ্ধিকালে নামমাত্র আর্থিক এককে কিংবা আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিবেদনের নীতিমালা  অনুযায়ী অত্যুচ্চ মূল্যবৃদ্ধিকালে ধ্রুব ক্রয়ক্ষমতাসম্পন্ন এককেঅর্থায়িত মূলধন রক্ষণাবেক্ষণকে আর্থিক হিসাববিজ্ঞান বলা হয়। আর্থিক হিসাববিজ্ঞান অনুসারে প্রতিষ্ঠানের আর্থিক তথ্যাবলির প্রতিবেদন তৈরি করে তা বহিঃস্থ ব্যবহারকারীদের, যেমন বিনিয়োগকারী, পরিচালকবৃন্দ এবং সরবারহকগণের নিকট উপস্থাপন করার উপর গুরুত্বারোপ করে।

এটি সর্বজনগ্রাহ্য হিসাববিজ্ঞান নীতিমালা বা সহিনী  অনুসারে বহিঃস্থ ব্যবহারকারীদের জন্য ব্যবসায়িক লেনদেন পরিমাপ ও সংরক্ষণ এবং আর্থিক বিবরণী প্রস্তুত করে থাকে সহিনী তাত্ত্বিক ও প্রায়োগিক হিসাববিজ্ঞানের মধ্যকার বৃহৎ মতৈক্য হতে ধারাবাহিকভাবে উৎপন্ন হয়েছে, যা সিদ্ধান্তপ্রণেতাদের প্রয়োজনানুযায়ী কালক্রমে পরিবর্তিত হয়

আর্থিক হিসাববিজ্ঞানের সাহায্যে সাধারণত বাৎসরিক বা অর্ধবাৎসরিক সময়ের ভিত্তিতে কোনো প্রতিষ্ঠানের পূর্বকালীন প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হয়ে থাকে। যেমন, ২০০৬ সনে প্রস্তুতকৃত আর্থিক বিবরণী বর্ণনা করবে ২০০৫ সনের আর্থিক অবস্থা।

ব্যবস্থাপনা হিসাব বিজ্ঞান

ব্যবস্থাপনা হিসাববিজ্ঞান সে সকল তথ্যাদি পরিমাপণ, সংরক্ষণ ও বিবরণের উপর গুরুত্বারোপ করে যেগুলি ব্যবস্থাপকদেরকে তাদের প্রতিষ্ঠানের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জনের জন্য প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণে সহায়তা করে। ব্যবস্থাপনা হিসাববিজ্ঞানে ব্যয়-উপযোগিতা বিশ্লেষণ অনুযায়ী অভ্যন্তরীণ হিসাবনিকাশ তৈরি করা হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে সহিনী অনুসরণ করা বাধ্যতামূলক নয়।

ব্যবস্থাপনা হিসাববিজ্ঞান ভবিষ্যৎ সময়ের জন্য বিবরণী প্রস্তুত করে থাকে, যেমন ২০০৬ সনের বাজেটটি ২০০৫ সনে প্রণয়ন করাটা এ ধরনের হিসাববিজ্ঞানের কাজ। এক্ষেত্রে, সময়ের পরিসীমা ব্যাপকভাবে পরিবর্তিত হয়ে থাকে। এরূপ বিবৃতিতে আর্থিক ও অনার্থিক, দু’ধরনের তথ্যই থাকতে পারে এবং উদাহরণস্বরূপ বিশেষ কোনো পণ্য বা বিভাগের উপর গুরুত্বারোপ করা হতে পারে।

নিরীক্ষণ

অন্যের দ্বারা সুনিশ্চিত উক্তি ও দাবির সত্যপ্রতিপাদনকে নিরীক্ষণ বলে। এ কাজটির প্রতিদানে নিরীক্ষণের দায়িত্বে নিয়োজিত ব্যক্তিকে নির্দিষ্ট পরিমাণ সম্মানী প্রদান করা হয়ে থাকে। হিসাববিজ্ঞানের ধারণায় নিরীক্ষণ হলো “কোনো প্রতিষ্ঠানের আর্থিক বিবরণীর পক্ষপাতহীন পরীক্ষণ ও সংখ্যাত্মক পরিমাপণ।

আর্থিক বিবরণীর নিরীক্ষার লক্ষ্য হলো আর্থিক বিবরণীটির সম্পর্কে স্বীকৃতি বা অস্বীকৃতিমূলক মন্তব্য প্রকাশ করা। আর্থিক বিবরণী যে সুষ্ঠুতার সাথে সহিনী অনুযায়ী ও “সকল দ্রব্যবাচক দিক” হতে কোনো প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির আর্থিক অবস্থা, কার্যফলাফল, ও নগদ অর্থপ্রবাহ প্রকাশ করে, একজন নিরীক্ষক সেটি সম্পর্কে অভিমত দিয়ে থাকে। নিরীক্ষককে সে সকল ক্ষেত্রসমূহও শনাক্ত করতে হয় যে সকল ক্ষেত্রগুলিতে ধারাবাহিকভাবে সহিনী মেনে চলা হয় নি।

হিসাব বিজ্ঞান তথ্য ব্যবস্থা

কোনো একটি প্রতিষ্ঠানের সার্বিক তথ্য পদ্ধতির যে অংশটি বিশেষভাবে পরিমাণবাচক তথ্য প্রক্রিয়াকরণের উপর গুরুত্বারোপ করে তাকে হিসাববিজ্ঞান তথ্য ব্যবস্থা বলে।

হিসাববিজ্ঞানের তথ্য ব্যবস্থায় দুটি পক্ষ জড়িত থাকে; তথ্য প্রস্তুতকারী এবং তথ্যের ব্যবহারকারী। হিসাববিজ্ঞান ব্যবসায়ের ভাষা হিসেবে বিভিন্ন সংশ্লিষ্ট পক্ষের নিকট তথ্য সরবরাহ কাজে ব্যবহৃত হওয়ায় বর্তমানে হিসাববিজ্ঞানকে একটি তথ্য ব্যবস্থা হিসেবে সংজ্ঞায়িত করা হয়। হিসাববিজ্ঞান তথ্যের ব্যবহারকারী ২ ধরনেরঃ

  • অভ্যন্তরীণ ব্যবহারকারী: যারা সংশ্লিষ্ট ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা ও মালিকানার আওতাভুক্ত তাদেরকে অভ্যন্তরীণ ব্যবহারকারী বলা হয়।
  • বাহ্যিক ব্যবহারকারী: যারা ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িত কিন্তু মালিকানা এবং ব্যবস্থাপনার অংশ নন তাদেরকে বাহ্যিক ব্যবহারকারী বলা হয়; যেমনঃ পাওনাদার, কর কর্তৃপক্ষ, সরকার, নিরীক্ষক প্রমুখ।

আমাদের আর্টিকেল সম্বন্ধে কারো কোন অভিযোগ বা পরামর্শ থাকলে নিচে কমেন্ট করে জানাতে পারেন ।আপনার কথা আমরা সাদরে গ্রহণ করব।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

x
error: Content is protected !!