Sunday, November 27, 2022
HomeQuestionsআন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা কোথায় হবে

আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা কোথায় হবে

আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা 2022 প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাণিজ্য মেলার ২৬তম আসরের উদ্বোধন করেন।

আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা 2022

একইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী রপ্তানি নীতিমালা অনুযায়ী রপ্তানিকে উৎসাহিত করতে ‘আইসিটি পণ্য ও সেবা’কে এ বছর-২০২২ সালের ‘প্রোডাক্ট অব দ্য ইয়ার’ হিসেবে ঘোষণা করেন।

আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা
আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা

আরো পড়ুনঃ ছেলেদের সবচেয়ে বেশি বিক্রিত জাঙ্গিয়া  কিনতে ক্লিক – এখনই কিনুন

দেশের রপ্তানি পণ্যের প্রবৃদ্ধি ও বাজার বৈচিত্রের লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো এবং অন্যান্য সহায়ক সংস্থা এই মেলার আয়োজন করছে।

উল্লেখ্য, দেশীয় পণ্যের প্রচার, প্রসার, বিপণন ও উৎপাদনে সহায়তা দেয়ার লক্ষে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর যৌথ উদ্যোগে ১৯৯৫ সাল হ’তে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার আয়োজন করা হচ্ছে। এবারই প্রথমবারের মতো স্থায়ী কমপ্লেক্সে এ মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আগে আগারগাঁওয়ে বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত হতো।

আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা ২০২২

এর আগে শুক্রবার ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা-২০২২ উপলক্ষে মেলার এক্সিবিশন সেন্টারে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, গত বছর কভিড-১৯ মহামারির কারণে মেলার আয়োজন করা সম্ভব না হলেও এখন প্রথমবারের মতো স্থায়ী ভেন্যুতে (বিবিসিএফইসি) বাণিজ্য মেলা হচ্ছে।

তিনি বলেন, এ বছর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও দেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে সামনে রেখে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

বাণিজ্য মেলা ২০২২ কোথায় হবে

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়- পূর্বাচল নতুন শহরে নব-নির্মিত বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে মাসব্যাপী চলবে মেলা।

আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা
আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের সবচেয়ে বেশি বিক্রিত জাঙ্গিয়া কিনতে ক্লিক – এখনই কিনুন

অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধাসহ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এক্সিবিশন সেন্টারের ১৪ হাজার ৩৬৬ বর্গমিটার আয়তনের দু’টি হলে সব স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। মেলা কমপ্লেক্সের বাইরে (সম্মুখ ও পেছনে) প্যাভিলিয়ন, মিনি প্যাভিলিয়ন ও ফুড স্টল নির্মাণ করা হয়েছে। মেলার বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে বঙ্গবন্ধু প্যাভেলিয়ন নির্মাণ করা হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ লম্বা হওয়ার ঔষধের দাম 600 টাকা এখনই পরুন

বাণিজ্য মেলা কোথায় হবে

দেশি-বিদেশি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে বিভিন্ন ক্যাটাগরির মোট ২৩টি প্যাভিলিয়ন, ২৭টি মিনি প্যাভিলিয়ন, ১৬২টি স্টল ও ১৫টি ফুড স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

এবার মেলায় প্রদর্শিত পণ্যের মধ্যে রয়েছে দেশীয় বস্ত্র, মেশিনারিজ, কারপেট, কসমেটিকস অ্যান্ড বিউটি এইডস, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিকস, ফার্নিচার, পাট ও পাটজাত পণ্য, গৃহ-সামগ্রী, চামড়া ও জুতাসহ চামড়াজাত পণ্য, স্পোর্টস গুডস, স্যানিটারিওয়্যার, খেলনা, স্টেশনারি, ক্রোকারিজ, প্লাস্টিক, মেলামাইন পলিমার, হারবাল ও টয়লেট্রিজ, ইমিটেশন জুয়েলারি, প্রক্রিয়াজাত খাদ্য, হস্তশিল্পজাত পণ্য, হোম ডেকর ইত্যাদি।

বাণিজ্য মেলা কোথায় হয়
বাণিজ্য মেলা কোথায় হয়

আরো পড়ুনঃ ৩০,৩২,৩৪, সাইজের স্পোর্টস ব্রা কিনতে ক্লিক – এখনই কিনুন

বাণিজ্য মেলা ২০২২ কবে শুরু হবে

প্রতিদিন মেলা সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে চলবে রাত ৯টা পর্যন্ত (সাপ্তাহিক ছুটির দিনে রাত ১০টা পর্যন্ত)। মেলার প্রবেশ মূল্য প্রাপ্তবয়স্কদের ৪০ টাকা, শিশুদের ২০ টাকা।

মেলায় দর্শনার্থীদের যাতায়াতের সুবিধার জন্য কুড়িল ফ্লাইওভার থেকে প্রতিদিন ৩০টি বিআরটিসি বাস ও অন্যান্য যাত্রীবাহী বাস চলাচল করবে। ভাড়া জনপ্রতি ৪০ টাকা। নামতে হবে কাঞ্চন ব্রীজ। সেখান থেকে ১০ টাকা রিকশা ভাড়া দিয়ে মেলা প্রাঙ্গণে যেতে হবে।

বাণিজ্য মেলা কোথায় হয়

সাধারণত, ১৯৯৫ সাল হতে গত ২৫ টি ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা শেরেবাংলা নগরস্থ বাণিজ্য মেলা মাঠে হয়ে আসলেও উক্ত সময়ে মেলাকে কেন্দ্র করে মেলা এলাকায় যানজট ও লোকসমাগম অনেক বেশি বেড়ে যওয়ায় ঢাকার অদুরে পূর্বাচল উপশহরের ৪ নম্বর সেক্টরে ২০১৭ সালে ২০ একর জায়গার একটি এক্সিবিশন সেন্টার তৈরির ঘোষণা করে সরকার। চীন ও বাংলাদেশের যৌথ অর্থায়নে বাণিজ্য মেলা ও প্রদর্শনীর এই স্থায়ী অবকাঠামো নির্মাণ করা হয় যা ‘বাংলাদেশ-চীন এক্সিবিশন সেন্টার’ নামে পরিচিত।

janbobd.net
janbobd.net

আরো পড়ুনঃ কেডস জুতা কিনতে সরাসরি ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

পূর্বাচলের নতুন এই ভেন্যুটিতে রয়েছে ৩৩ হাজার বর্গমিটারের প্রদর্শনী স্পেস। এছাড়া, ফ্লোর স্পেস হলো ২৪ হাজার ৩৭০ বর্গমিটার আর এক্সিবিশন স্পেস হলো ১৫ হাজার ৪১৮ বর্গমিটার।

বাণিজ্য মেলা কোথায় হয়


২০২০ সালে শেরেবাংলা নগরে যে বাণিজ্য মেলা হয়েছে, সেখানে মোট ৫১৬টি স্টল বসেছিল। কিন্তু এখানে সব মিলিয়ে স্টল করার ক্যাপাসিটি রয়েছে তিনশোর কিছু বেশি। ফলে এবারের মেলায় তুলনামূলকভাবে অংশ নেয়া স্টলের সংখ্যা কম হবে।

এর আগে বাণিজ্য মেলা নিয়ে অনেক সময় সমালোচনা উঠেছিল যে, মেলায় আন্তর্জাতিক পরিবেশ থাকে না।

২৫তম বাণিজ্য মেলার উদ্বোধনকালে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছিলেন, ”এই মেলা কোনভাবেই আন্তর্জাতিক মানদণ্ডে নেই। তবে আগামীবার থেকে পূর্বাচলে অনুষ্ঠিত হলে আন্তর্জাতিক মানের করার চেষ্টা করা হবে।”

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এবারের মেলায় মূলত রপ্তানিযোগ্য প্রতিষ্ঠানই যাতে অংশ নেয়, সেই চেষ্টা করা হবে।

janbobd.net
janbobd.net

মাস্ক ছাড়া মেলায় প্রবেশ করা যাবে না
ইফতেখার আহমেদ বলেন, ”কোভিড পরিস্থিতির কারণে মেলায় মাস্ক ছাড়া কেউ প্রবেশ করতে পারবেন না। এছাড়া বিদেশি ব্যবসা ও গ্রাহকদের আকর্ষণ করার জন্য পূর্বাচলের মেলায় আন্তর্জাতিক মান বজায় রাখার চেষ্টা করা হবে।”

ভেন্যু দূরে হওয়ায় কি সমস্যা হবে


পূর্বাচলের যে স্থানে এই বছর বাণিজ্য মেলা করার কথা ভাবা হচ্ছে, সেটি কুড়িল বিশ্বরোড থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে।

তবে সেটি মেলার জন্য কোন সমস্যা তৈরি করবে না বলেই মনে করেন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সহ-সভাপতি হাসিনা নেওয়াজ।

তিনি বিবিসি বাংলাকে বলছেন, দূরত্ব কোন অসুবিধা তৈরি করবে না। কারণ বাণিজ্য মেলায় সবাই বেড়াতে যায় না, মানুষ প্রয়োজনেই যায়। সুতরাং এটা মেলার জন্য, ক্রেতা বা ব্যবসায়ীদের জন্য কোন সমস্যা তৈরি করবে বলে আমি মনে করিনা।

মেলাটি আয়োজন খুব গুরুত্বপূর্ণ বলে তিনি মনে করেন।

”দেশ-বিদেশ থেকে যাই আসুক না কেন, এখানে সবার সঙ্গে সবার দেখা হচ্ছে, তথ্য আদান প্রদান হচ্ছে, পণ্যের যাচাই বাছাই হচ্ছে। সব ব্যবসায়ীদের জন্যই এটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ।” বলছেন হাসিনা নেওয়াজ।

দিয়া অর্থ কি
দিয়া অর্থ কি

প্রতিবছর বাণিজ্য মেলা থেকে সাংসারিক নানা জিনিসপত্র কেনাকাটা করেন সোহানা ইয়াসমিন। তিনি অবশ্য আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন, ”আগে ঢাকার ভেতরে ছিল, সিএনজিতে করে মেলায় যেতে পারতাম। কিন্তু এখন এতো দূরে মেলা হলে আর যাওয়া হবে কিনা, সন্দেহ আছে।”

সমস্যা হতে পারে সড়কের নির্মাণ কাজ


যেখানে বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে, তার সামনেই পূর্বাচলের তিনশো ফিট সড়কের সংস্কার কার্যক্রম চলছে। এটি শেষ হতে আরও সময় লাগবে।

ফলে এটি মেলার আয়োজনে খানিকটা বিঘ্ন ঘটাতে পারে বলে কর্মকর্তাদের অনেকে আশঙ্কা করছেন।

তবে সচিব মোঃ ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী বলছেন, ”রাস্তার কাজে খানিকটা সমস্যা হলেও আশেপাশে আরও অনেক সড়ক আছে। মানুষজন ভেতরের সড়কগুলো দিয়ে, বিকল্প পথগুলো দিয়ে যাতায়াত করতে পারবে। যারা মেলায় যেতে চাইবেন, এই টুকু সমস্যা ততো বেশি সমস্যা হবে বলে মনে হয় না।”

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

x
error: Content is protected !!